এফিলিয়েট মার্কেটিং কি এবং কিভাবে করবো Affiliate Marketing

এফিলিয়েট মার্কেটিং কি এবং কিভাবে করবো Affiliate Marketing?

Blogging Tips Tips and Tricks

এফিলিয়েট মার্কেটিং কি এবং কিভাবে করবো Affiliate Marketing? এই রকম প্রশ্ন প্রায় সবারই জেগেছে যারা অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন করতে চেয়েছেন। আজকে আমি আপনাদের সাথে এই এফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে ভালো ভাবে বলবো এবং কিভাবে এই এফিলিয়েট মার্কেটিং করবেন তার ধারনা দিবো। সম্পূর্ন পোষ্টটি পড়লেই আপনি তা বুঝতে পারবেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিং কিঃ

এফিলিয়েট মার্কেটিং হলো একটি মাধ্যম বা রাস্তা যার মাধ্যমে আপনি অন্য কোনো মানুষের বা প্রোডাক্টস এর মার্কেটিং এর জন্য কমিশন পেয়ে থাকে। অর্থাৎ মার্কেটিং করার পর সেখান থেকে একটা নির্দিষ্ট পরিমান কমিশন উপার্জন করাই হলো এফিলিয়েট মার্কেটিং। ধরুন আপনি একটি কোম্পানীর পন্য প্রচার করছেন এবং বিক্রি করতে সাহায্য করছেন সেখানে আপনার প্রচার করার মাধ্যমে যত গুলো প্রোডাক্টস বিক্রি হবে প্রতিটি প্রোডাক্টস এর একটা নির্দিষ্ট পরিমান কমিশন আপনি উপার্জন করবেন।

এফিলিয়েট মার্কেটার কি করেঃ

এফিলিয়েট মার্কেটার খুজে প্রোডাক্টস বের করে যে গুলো সে পছন্দ করে এবং তা অন্যের  কাছে প্রচার করে এবং উপার্জন করে প্রতিটি বিক্রির একটা নির্দিষ্ট অংশ।

কিভাবে আমি এফিলিয়েট মার্কেটার হয়ে উঠবো?

অবশ্যই আপনাকে ভালো ভাবে জানতে হবে যে কোথা থেকে শুরু করবেন এবং কিভাবে শুরু করবেন। এফিলিয়েট মার্কেটার হয়ে উঠতে হলে আপনাকে কোম্পানীর সাথে কাজ করে এবং তাদের পন্য প্রচার করে এবং বিক্রি করে এফিলিয়েট মার্কেটার হয়ে উঠতে পারেন।

প্রথমেই আপনাকে একটি নির্দিষ্ট টপিক এর উপর ওয়েব সাইট তৈরি করে নিতে হবে যে বিষয়ে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চাচ্ছেন। যেমন আপনি ইলেকট্রিক পন্য বিক্রি করতে পারবেন তাহলে আপনি ইলেকট্রিক পন্য বিক্রি করার মতো করে একটি ওয়েব সাইট তৈরি করেন। আপনি বলতে পারেন এখানে ইলেকট্রিক পন্যের উপর কেনো ওয়েব সাইট তৈরি করতে হবে তাহলে তার উত্তর হলো আপনাকে একটি ওয়েব সাইটের মাধ্যমে ট্রাফিক নিয়ে আসতে হবে তার পর সেই ট্রাফিক এর কিছু লোক আপনার প্রচার করা পন্য কিনবে এবং আপনার ইনকাম হবে। এবার বলতে পারেন যে তাহলে ইলেকট্রিক পন্যের উপর কেনো সাইট তৈরি করতে হবে কারন আপনি যদি ইলেকট্রিক পন্য নিয়ে ওয়েব সাইট তৈরি করেন আর সেখানে যদি আপনি কাপড় বিক্রি করার এড দেখান বা কাপড় এ প্রচার করেন তাহলে নিশ্চই তেমন বিক্রি বা সেল হবে না কারণ সেখানে যে ট্রাফিক গুলো এসেছে তারা সবাই এসেছে ইলেকট্রিক পন্য কিনতে। তাই আপনাকে একটি ভালো টপিক বাছাই করে নিতে হবে যে বিষয়ে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চাচ্ছেন।

আপনি চাইলে আপনার ফেসবুক পেইজ বা অন্য কোনো মাধ্যমে প্রোমোট করতে পারেন কিন্তু যেখানেই প্রোমোট বা প্রচার করেন বিক্রি করার জন্য সেখানে আপনার অবশ্যই অনেক ট্রাফিক থাকতে হবে কারন যদি ট্রাফিক ই না থাকে তাহলে কে আপনার প্রচার করা পন্য দেখবে আর কে কিনবে। তাই অবশ্যই আপনাকে ট্রাফিক নিয়ে আসতে হবে।

আবার আপনার মনে হতে পারে যে আমার তো নতুন ওয়েব সাইট ট্রাফিক নেই তাহলে ট্রাফিক কিনবো এবং এফিলিয়েট মার্কেটিং করবো তাহলে ভুল হবে। আপনাকে ইউনিক ভিজিটর বা ট্রাফিক অর্জন করতে হবে কারন কেনা ট্রাফিক যারা আসে তাদের ৯৯ শতাংশ কোনো কিছু কিনতে আসে না দেখেই চলে যায়।

নিচে কিছু এফিলিয়েট মার্কেটিং করার সাইট এর বর্ননা করা হলো:

অ্যামাজন.কম (Amazon.com):

অ্যামাজন একটি অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এখান থেকে প্রতি মাসে মানুষ এফিলিয়েট মাকেটিং করে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করছে। আপনিও শুরু করতে পারেন আজ থেকেই। আপনার কাজ হলো তাদের ওয়েব সাইটে গিয়ে এফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য একটি একাউন্ট খুলতে হবে । তার পর সেখান থেকে পন্যের এফিলিয়েট লিংক কপি করে সেগুলো প্রচার করতে হবে। আপনার তৈরি করা এফিলিয়েট লিংক এ ক্লিক করে তাদের ওয়েব সাইটে গিয়ে ৩০ দিনের ভিতর যদি কোনো পন্য কিনে তাহলেই পেয়ে যাবেন নির্দিষ্ট পরিমান এফিলিয়েট কমিশন।

ক্লিকব্যাংক.কম (clickbank.com):

ক্লিকব্যাংক আর একটি অনলাইন ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান। এরাও আপনাকে এফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য অফার করে। তাদের পন্য ২০ বছর ধরে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আসছে মানুষ এবং তারা প্রায় ৪.২ বিলিয়ন আমেরিকান ডলার ইনকাম করেছে। তাদের ওয়েব স্টোরে অনেক রকম পন্য রয়েছে যেমন ইলেকট্রিক, গেমস, সফটওয়্যার ইত্যাদি অনেক পন্য রয়েছে এফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য।

এই রকম আরও অনেক ওয়েব সাইট রয়েছে যেখানকার পন্যের আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারবেন। তাদের মধ্যে রয়েছে BDSHOP.COM   Remaxbangladesh.com  Daraz.com ইত্যাদি এমন বাংলাদেশী ওয়েব সাইট ও রয়েছে যেখান থেকে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারবেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে কত টাকা ইনকাম করতে পারবো?

এফিলিয়েট মার্কেটিং এ কত টাকা ইনকাম করতে পারবো তার কোনো সীমা নেই। আপনি যত বেশি বিক্রি করতে পারবেন তত বেশি ইনকাম করতে পারবেন। এখানে কোনো ধরা বান্দা নিয়ম বা সীমাবদ্ধতা নেই যে আপনি এর বেশি ইনকাম করতে পারবেন না। কিন্তু একটা পরিসংখ্যানে দেখা গেছে যে, যারা ইনকাম করতে শুরু করেছে নতুন তারা প্রতিদিন ৩০০ ডলার এর মতো ইনকাম করে থাকে। তারপর যারা তার উপরে বা মিডিয়াম লেবেল এ আছে তারা প্রতিদিন প্রায় ৩০০ ডলার থেকে ৩,০০০ হাজার ডলার ইনকাম করে থাকে। এর পর উচ্চ লেবেলে যারা রয়েছে তারা দিনে প্রায় ৩,০০০ হাজার ডলার এরও বেশি ডলার ইনকাম করে থাকে। এরপর রয়েছে যারা প্রতিদিন প্রায় ১০,০০০ ডলার ইনকাম করে থাকে। তাদের বলা হয়ে থাকে এফিলিয়েটের গুরু

Leave a Reply

Your email address will not be published.